English Version

অবশেষে মৃত্যুর কাছে হার মানলো সেই বানরটি….!

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

জি এম মিঠন, নওগাঁ: দীর্ঘ ৯ দিন চিকিৎসা সেবা দেওয়ার পরও বাঁচানো গেলো না, অবশেষে মৃত্যুর কাছে হার মানলো সেই বানরটি? রবিবার ১৮ অক্টোবর বিকালে বানরটি মারা যায়। উল্লেখ্য-গত ১০ অক্টোবর শনিবার সকালে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ভীমপুর ইউনিয়নের ভান্ডারপুর গ্রামের জৈনক লক্ষণ কবিরাজ নামের এক যুবককে কামড়ে দেওয়ার অপরাধে গ্রামের দু’ জন যুবক বানরটিকে ধাওয়া করে পিঠে আগাত করেন।

মহূর্তের মধ্যে ঘটনাটি জানাজানি হলে সে দিনই স্থানিয় ইউপি মেম্বার সহ উপস্থিত লোকজনের চাপের মুখে আঘাতকারী যুবকরা বানরটিকে চিকিৎসার দায়িত্বও নেয় প্রাথমিকভাবে পশু চিকিৎসক সহ পরবর্তীতে পশু হাসপাতালে নিয়ে বানরটিকে চিকিৎসা করাকালে রবিবার বিকালে মারা যায় বানরটি।

এ ব্যাপারে ভান্ডারপুর গ্রামের গ্রাম্য মোড়ল সহ গ্রামের লোকজন জানান, গত ১০ অক্টোবর শনিবার সকালে বণ্যপ্রাণী বানরটি গ্রামের হতদরিদ্র শ্রী ধীরেন কবিরাজ এর ছেলে শ্রী লক্ষণ কবিরাজ (২৫) এর হাতে কামড়ে দিলে সে সময় লক্ষণের বড় ভাই অটো-চার্জার চালক বিপুল কবিরাজ (৩২) ও একই গ্রামের দুলাল এর ছেলে নয়ন (২১) বানরটিকে ধাওয়া করেন এবং তার পিঠে গাছের ডাল দিয়ে আঘাত করেন।

এরপর বানরের কামড়ে আহত লক্ষণ কবিরাজ (২৫) কে নওগাঁ হাসপাতালে চিকিৎসার পাশাপাশি বণ্যপ্রাণী বানরটিকেও প্রথমে মহাদেবপুর পশু হাসপাতালের একজন চিকিৎসক দিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করানো সহ নওগাঁ পশু হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করান আঘাতকারী যুবকরা।

এরই মাঝে চিকিৎসা চলাকালে দীর্ঘ ৯ দিন পর রবিবার বিকালে বানরটি মারা যায় এবং বানরের কামুড়ে অসুস্থ লক্ষণ চন্দ্র কবিরাজ এর হাতের পরিস্থিতিও ভয়াভয় হওয়ার কারণে গ্রামের লোকজন মিলে অবশেষে বানরটিকে মাটিতে পুতে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন গ্রামের মাতব্বর।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে স্থানিয় ইউপি সদস্য দয়াল চন্দ্র জানান, প্রথম যেদিন বানরটিকে আঘাত করা হয়, সেই দিনই বানরটিকে চিকিৎসা ভালো (সুস্থ) করে তোলার দায়িত্ব দেওয়া হয়, কিন্তু চিকিৎসাধীন অবস্থায় বানরটি মারা গেলে গ্রামবাসী ঘটনাটি আমাকে জানিয়েছে এবং বলেছে যে- বানরের কামড়ে জখম প্রাপ্ত যুবক লক্ষণ কবিরাজ এর হাতের অবস্থা ভয়াভয় এবং পচন ধরেছে এমন অবস্থায় গ্রামের লোকজন বানরটিকে মাটিতে পুতে রাখার সিদ্ধান্ত নেয় এবং মাটিতে পুতে রাখে বলে আমি জেনেছি। বিডিটুডেস/এএনবি/ ১৮ অক্টোবর, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

5 × one =