English Version

আক্কেলপুরে প্রথমবারের মতো হতে যাচ্ছে ইভিএম-এ নির্বাচন

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

মওদুদ আহম্মেদ, আক্কেলপুর (জয়পুরহাট): জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে প্রথমবারের মতো ইলেট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চতুর্থ ধাপের পৌরসভা নির্বাচন। এবারের নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার নিয়ে বয়স্ক এবং নতুন ভোটারদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তবে ভোটের আগে প্রতিটি কেন্দ্রে ব্যাপক প্রচারের মাধ্যমে পরীক্ষামূলকভাবে (মগ ভোটিং) ইভিএম ব্যবহার করে ভোট গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, নির্বাচন কমিশন গত ৩ জানুয়ারী চতুর্থ ধাপে পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। এ নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী ৫৬টি পৌরসভার ন্যায় আক্কেলপুর পৌরসভায় আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী ভোট গ্রহণের কথা রয়েছে।

এবারের নির্বাচনে প্রথমবারের মতো ইলেট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করে ভোট গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন। এ নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডে পুরুষ ১০ হাজার ৬৬ জন, নারী ১০ হাজার ৩ শত ২৫ জনসহ মোট ২০ হাজার ৩ শত ৯১ জন ভোটার প্রথম বার ইভিএম ব্যবহার করে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস আরও জানায়, আক্কেলপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন, কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৯ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। ইতোমধ্যে নির্বাচনের মোটামুটি প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন অফিস। ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে পশ্চিম হাস্তাবসন্তপুর ৫ নং ওয়ার্ডে স্থায়ী কোনো ভোট কেন্দ্র না থাকায় অস্থায়ী ভোট কেন্দ্র নির্মাণ করে ভোট গ্রহণ করা হবে।

প্রথমবারের মতো ইভিএম ব্যবহার করে ভোট গ্রহণ হবে সেহেতু আগামী ১২ ফেব্রুয়ারী তারিখে প্রতিটি কেন্দ্রে সচেতনতামূলক প্রচারের মাধ্যমে পরীক্ষামূলকভাবে মগ ভোটিং (ডেমো ভোট) ইভিএম ব্যবহার করে ভোট গ্রহণ করা হবে। এতে ভোটারদের ইভিএমে ভোট প্রদানের প্রশিক্ষণ এবং এর ব্যবহার সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার।

৪ নং ওয়ার্ডের তরুণ ভোটার নুর ওয়ালিদ বলেন, ‘এই প্রথমবার আমি ভোটাধিকার প্রয়োগ করবো। ডিজিটাল বাংলাদেশে ইভিএমে ভোট দিতে পারবো জেনে আনন্দিত। মগ ভোটিং-এ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে একবার দেখিয়ে দিলে ইভিএম ব্যবহার করে সহজভাবে ভোট দিতে পারবো বলে আশা করছি’।

৮ নং ওয়ার্ডের বৃদ্ধা খোতেজা খাতুন বলেন, ‘এখন আমার বয়স ৬৮ বছর। আমার জীবনে কখনো মেশিন ব্যবহার করে ভোট দিইনি। এটি আমাদের কাছে একেবারে নতুন একটি বিষয়। কতটুকু ব্যবহার করতে পারবো তা বলতে পারছিনা’।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার সুদীপ কুমার রায় বলেন, ‘ইলেট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) একটি স্বচ্ছ প্রক্রিয়া। এর মাধ্যমে অবাধ, নিরপেক্ষ ও স্বচ্ছ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ বিষয়ে পরীক্ষামূলকভাবে মগ ভোটিং (ডেমো ভোট) ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করে ভোটারদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। ইভিএমে ভোট প্রদান খুব সহজ যা নতুন, পুরাতন এবং বয়স্করাসহ সকল শ্রেণির ভোটার অল্প সময়ে সঠিকভাবে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট প্রদান করতে পারবেন এবং ভোট নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা নেই’।

ইভিএম এর কারিগরি ত্রুটির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সাধারণত ইভিএম মেশিনের কারিগরি ত্রুটির সম্ভাবনা নেই। তারপরও প্রতিটি কেন্দ্রে বিকল্প হিসেবে অতিরিক্ত ইভিএম মজুদ রাখা হবে এবং তাৎক্ষণিক ত্রুটি সারানোর জন্য নির্বাচন কমিশনের দক্ষ জনবল সার্বক্ষণিক কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করবে’। বিডিটুডেস/এএনবি/ ২৩ জানুয়ারি, ২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

18 − 12 =