English Version

আজ ৫ই জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও আমাদের করণীয়

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

কে এস এম আরিফুল ইসলাম, মৌলভীবাজার: প্রতি বছর, বিশ্ব পরিবেশ দিবসের একটি থিম বা প্রতিপাদ্য বিষয় থাকে। ২০২০ বিশ্ব পরিবেশ দিবসের প্রতিপাদ্য হ’ল ‘প্রকৃতির জন্য সময়’ (Time for Nature)। এর লক্ষ্য কীভাবে পৃথিবীর বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের বিকাশ করা যায়, সেই রূপ কাঠামো গঠন। প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী দেশগুলিতে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে সরকারী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

তবে এই বছরের আয়োজক হল জার্মানি, সঙ্গে জুটি বেঁধেছে কলম্বিয়া। তবে এই বছর, COVID-19 মহামারীর প্রাদুর্ভাবের কারণে লক্ষ লক্ষ মানুষ ডিজিটাল মাধ্যমেই বিশ্ব পরিবেশ দিবস উদযাপন করবে বলে ঠিক করেছে। লকডাউন মানুষের জীবন বিধ্বস্ত করে দিয়েছে ঠিকই, তবে লকডাউন পরিবেশের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

দিবসটি বিশ্বের বা একটি নির্দিষ্ট দেশের সম্মুখীন পরিবেশগত সমস্যা সম্পর্কে জনগণকে সচেতনতা সৃষ্টি করতে পালন করা হয়। বিশ্ব পরিবেশ দিবস (সংক্ষেপে WED) প্রতি বছর ৫ জুন বিশ্বব্যাপী রাজনৈতিক কর্মোদ্যোগ আর জনসচেতনতার মাধ্যমে পরিবেশ সচেতনতার লক্ষ্যে পালিত দিবস। এই দিনটিতেই জাতিসংঘের মানবিক পরিবেশ কনফারেন্স (United Nations Conference on the Human Environment) শুরু হয়েছিল। এই কনফারেন্স হয়েছিল ১৯৭২ খ্রিষ্টা অব্দের ৫ থেকে ১৬ জুন অবধি।

এই কনফারেন্স ঐ বছরই চালু করেছিল জাতিসংঘের সাধারণ সভা। তখন থেকেই প্রতি বৎসর এই দিবস পালিত হয়ে আসছে। দিবসটি প্রথম পালিত হয় ১৯৭৪ খ্রিষ্টাব্দে। প্রতি বছরই দিবসটি আলাদা আলাদা শহরে, আলাদা আলাদা প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে পালিত হয়। ২০১৮ সালে প্লাস্টিক-দূষণ বন্ধের আহ্বানে ‘বিট প্লাস্টিক পলিউশন’ প্রতিপাদ্য নিয়ে সারাবিশ্বে দিবসটি পালিত হবে। উত্তর গোলার্ধে দিবসটি বসন্তে, আর দক্ষিণ গোলার্ধে দিবসটি শরতে পালিত হয়।

ইতিহাসের পাতায় আজকের দিনটা:

১৯৬৮ সালের ২০ মে জাতিসংঘের অর্থনীতি ও সামাজিক পরিষদের কাছে একটি চিঠি পাঠায় সুইডেন সরকার। চিঠির বিষয়বস্তু ছিল প্রকৃতি ও পরিবেশ দূষণ সম্পর্কে তাদের গভীর উদ্বেগের কথা। সে বছরই জাতিসংঘের পক্ষ থেকে পরিবেশ রক্ষার বিষয়টি সাধারণ অধিবেশনের আলোচ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। পরের বছর জাতিসংঘের পক্ষ থেকে পরিবেশ রক্ষার বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা

এবং সমাধানের উপায় খুঁজতে সদস্যরাষ্ট্রগুলোর সম্মতিতে সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে ১৯৭২ সালের ৫ থেকে ১৬ জুন জাতিসংঘ মানব পরিবেশ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনটি ইতিহাসের প্রথম পরিবেশ-বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের স্বীকৃতি পায়। ১৯৭৩ সালে সম্মেলনের প্রথম দিন ৫ জুনকে জাতিসংঘ ‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস’ হিসেবে ঘোষণা দেয়। ১৯৭৪ সাল থেকে প্রতিবছর দিবসটি বিশ্বব্যাপী পালিত হয়ে আসছে।

আমাদের করণীয়:

পৃথিবীর পরিবেশ চক্রের অনেক কিছুই সংকটপূর্ণ আঘাতের দিকে ধাবিত হচ্ছে। আমাদের জন্য পরিবর্তনের এখনই সময়। এই গ্রহ আমাদেরকে যে পরিমান সম্পদ স্থায়িভাবে দিতে পারে মানবজাতি তার চেয়ে অনেক বেশি ব্যবহার করে যাচ্ছে।

আর স্থিতিশীল উন্নয়নের লক্ষ্য হলো পরিবেশের ক্ষতি-বৃদ্ধি ব্যাতিরেকে এবং আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সম্পদের চাহিদার ব্যাপারে কোন আপোষ না করে সকল মানুষের জীবন-মান উন্নয়ন । পণ্য ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমাদের অভ্যাস পরিবর্তনের মাধ্যমে, যেমন – জালানি, পানি এবং অন্যান্য সম্পদের স্বল্প ব্যবহার এবং খাদ্য অপচয় কমিয়ে এনে, এগুলো আমরা সঠিকভাবে করতে পারি।

রূপান্তরের এই বছরে স্থিতিশীল উন্নয়ন ও জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষেত্রে যখন আমরা প্রভূত উন্নয়ন অবলোকনের অপেক্ষায় আছি, আসুন, তখন আমরা পরিবেশের প্রভাব সম্পর্কে অধিকতর সচেতন হয়ে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উদযাপন করি। আসুন, আমাদের কারনে তৈরি পরিবেশের ফলাফলগুলো সম্পর্কে চিন্তা করি। আসুন, আমরা আমাদের এই গ্রহের শ্রেয়তর সেবকে পরিনত হই।

কেন পালন করা হয় বিশ্ব পরিবেশ দিবস? এমন প্রশ্নের জবাবে বলতে চাইয, বিগত কয়েক বছর যাবত আমার দেখছি, শুনছি এবং পড়ছি, বিশ্বে পরিবেশ দূষণের সমস্যা ক্রমশ তীব্র আকার ধারণ করছিল। মানুষ তাদের সুবিধার জন্য সংস্থান তৈরি করেছে, আর তার জন্য ধ্বংস করেছে পরিবেশকে। এই কেউ-প্রভাবের কারণে সৃষ্ট সমস্যাগুলির সঙ্গে মোকাবিলার জন্য একটি বিশ্বব্যাপী প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা হয়। বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালনের মূল কারণ হ’ল পরিবেশ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করা।

লেখক: কে এস এম আরিফুল ইসলাম,সাংবাদিক, কলামিস্ট ও সিনিয়র শিক্ষক, দারুল আজহার ইনস্টিটিউট
শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার। বিডিটুডেস/এএনবি/ ০৫ জুন, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

seventeen − eleven =