English Version

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

তামীম আদনান, কুবি: কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে কমপক্ষে ১৫জন আহত হয়েছে। হামলার অভিযোগ ইবির মেইন গেট বন্ধ করে দিয়ে পদ বঞ্চিত অংশের নেতা-কর্মিরা কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পশাল ও সাধারন সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব তার সহযোগিদের নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। এ সময় দলীয় টেন্ডে যাওয়ার চেষ্টা করলে পদ বঞ্চিত মিজানুর রহমান লালন-ফয়সাল আরাফাত গ্রুপের বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মিরা তাদের ধাওয়া দেয়। এ সময় দুইগ্রপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে সাধারণ সম্পাদক রাকিবসহ দুই পক্ষের কমপক্ষে ১৫জন নেতা-কর্মি আহত হয়।

এ সময় ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায় সভাপতি-সম্পাদকসহ তার সমর্থকরা। পরে হামলার অভিযোগ এনে লালন-আরাফাত গ্রুপের কর্মীরা ক্যাম্পাসের মূল ফটক বন্ধ করে দিয়ে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়ক প্রায় ঘন্টাব্যাপী অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ করে তারা। হামলার জন্য পলাশ ও রাকিবকে দায়ী করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি করেন।

স্বাস্থ্যের খবর জানুন

বিক্ষুব্ধ অংশের নেতা মিজানুর রহমান লালন বলেন, পলাশ ও রাকিব বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে আমাদের নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা করে। তারা ককটেল হামলা করলে আমাদের গ্রুপের কমপক্ষে ১০জন আহত হয়েছে। তাদের বিচারের দাবি জানাচ্ছি। তবে হামলার জন্য পলাশ ও রাবিক প্রতিপক্ষের কর্মীদের ওপর দোষ চাপান। এ ঘটনায় ক্যাম্পাসে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। অতিরিক্তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

উল্লেখ, পলাশকে সভাপতি ও রাকিবকে সাধারণ সম্পাদক করে গত ৬ মাস আগে ইবি ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হয়। এরপর বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মিদের বারবার বাঁধার কারণে তারা দীর্ঘদিন ক্যাম্পাস ছাড়া। নতুন করে ক্যাম্পাসে প্রবেশের চেষ্টা করায় এ সংঘর্ষ হয়। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার ওসি জাহাঙ্গীর আরিফ বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। তবে পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে। বিডিটুডেস/এএনবি/ ২১ জানুয়ারি, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

four × 3 =