English Version

কলেজ ছাত্রীর মাথার চুল কেটে ও অশ্লীল ছবি তুলে নেটে ছাড়ার হুমকি, যুবক আটক

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

জি এম মিঠন, নওগাঁ: নওগাঁর নিয়ামতপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের ছাত্রী রাব্বিনা আক্তার সুমী (১৮) এর মাথার চুল কেটে অশ্লীল ছবি তুলে ইন্টারনেটে প্রচারের হুমকি দেয়ায় এক বখাটে যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় কলেজ ছাত্রীর বাবা আমিরুল ইসলাম বাদী হয়ে ২১ সেপ্টেম্বর সোমবার নিয়ামতপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। বখাটে রায়হান (২৫) নিয়ামতপুর উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের ঝাজিরা গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে।

অভিযোগ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, ২০ সেপ্টেম্বর রবিবার বেলা ৫টায় বালাহৈর নামক স্থানে বখাটে রায়হান তার ভাড়া বাড়ীতে রাব্বিনা আক্তার সূমীকে ডেকে নিয়ে গিয়ে রায়হান ও তার স্ত্রী মাথার চুল কাটা সহ অশ্লীল ছবি তোলেন কলেজ ছাত্রীর। রাব্বিনা আক্তার সুমী উপজেলা সদর ইউনিয়নের শাংশৈইল গ্রামের আমিরুল ইসলামের মেয়ে।

কলেজ ছাত্রী সূমী সাংবাদিকদের বলেন, রায়হান এক মাস যাবত আমাকে বিভিন্নভাবে উত্তক্ত করতো। বিভিন্ন কু-প্রস্তাব দিত। আমি রাজী না হওয়ায় রবিবার বেলা ৩টা হতে ৪টা পর্যন্ত কম্পিউটার প্রশিক্ষণ শেষে আমার স্যার নিয়ামতপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক কামাল হোসেনের নিকট প্রাইভেটের টাকা দিতে যাই আমি, সেই সময় বালাহৈর জামে মসজিদের কাছে থেকে রায়হান ও তার তিন বন্ধু আমাকে জোরপূর্বক তার ভাড়া বাড়ীতে নিয়ে যায় এবং শারীরিকভাবে নির্যাতন করে, দেড় ফিট লম্বা মাথার চুল কেটে ফেলে এবং আমার ছবি তুলে হুমকি দেয় যদি এসব কাউকে বলি তাহলে আমাকে মেরে ফেলবে।

জানিয়ে কলেজ ছাত্রী সূমী আরো বলেন, আমাকে দু-ঘন্টা ঘরে আটকে রেখে আমার পর্ণছবি তুলে সন্ধ্যা ৭টার পরে থানায় নিয়ে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে মিথ্যা জবানবন্দি দিতে বাধ্য করে আমাকে ঐ বখাটে ও তার লোকজন। পরে আমার নানা থানায় এসে আমাকে নানা বাড়ীতে নিয়ে যায়। রাত ১২টায় শারীরিকভাবে বেশী অসুস্থ হলে আমাকে হাসপাতালে নিয়ে এসে ভর্তি করান।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত রায়হান পুলিশের হাতে আটকের আগ মূর্হুতে সাংবাদিকদের বলেন, সুমী গত তিন চার দিন আগে আমার বাসায় এসে আমার স্ত্রী রূপাকে একটি ছেলের সাথে সময় কাটানোর প্রস্তাব দেয়। আমার স্ত্রী রূপা (২০) বিষয়টি আমাকে জানালে আমি সেদিন থেকে সুমীকে খুঁজছিলাম।

গত রবিবার বেলা ৫টায় বালাহৈর জামে মসজিদের কাছে সুমীকে পেলে তাকে আমার স্ত্রীর কাছে নিয়ে গেলাম চিনার জন্য। আমার স্ত্রী রূপা সুমীকে চিনতে পারায় তাকে ছেলেটির সম্পর্কে জানতে চাই। সুমী ছেলেটির কোনো পরিচয় না দিলে আমরা তার অভিভাবককে ডাকতে বলি। সে অভিভাবককে না ডাকায় আমার স্ত্রী তাকে সামান্য চড়থাপ্পড় দিয়ে মাথার চুল কেটে দেয় যাতে পরবর্তীতে আর কোনো খারাপ কাজ করতে না পারে।

এ ব্যাপারে নিয়ামতপুর থানার ওসি সামসুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মেয়ের বাবা মামলা করেছেন তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বিডিটুডেস/এএনবি/ ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

three × 5 =