English Version

খাগড়াছড়ির গুইমারায় ৩টি ইউনিয়নে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

চাইথোয়াই মারমা, খাগড়াছড়ি: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা গুইমারা উপজেলায় ৩টি ইউনিয়নে মানিকছড়ি ও পানছড়ি উপজেলাতে নারী ধর্ষণ, নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। “নিরাপদ সমাজ গড়ি, নারী নির্যাতন বন্ধ করি”। “নিরাপদ নারী, নিরাপদ দেশ সুখি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ”।

“বন্ধ হোক নারী নির্যাতন নিশ্চিত হোক দেশের উন্নয়ন” এ স্লোগানে খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে মানিকছড়ি ও পানছড়ি উপজেলাতে শনিবার সকাল দশটায় একযোগে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নারী নির্যাতন, নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা বন্ধ এবং নারী বান্ধব দেশ গড়ার লক্ষে সারা দেশের ন্যায় খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের উদ্যোগে এবং গুইমারা থানা পুলিশের আয়োজনে হাফছড়ি, গুইমারা ও সিন্দুকছড়ি ইউনিয়ন পুরষদের কার্যালয়ে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। গুইমারা থানা অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মো: মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশ গুলোতে বক্তব্য রাখেন,

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান মেমং মারমা, হাফছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরী, হাফছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল কাদের ইউপি মহিলা সদস্য বিবি হাওয়াধন, শিউলি ত্রিপুরা, নুরুল ইসলাম, হরিপদ্ম ত্রিপুরা, আরমান হোসেন। এছাড়াও বিট ইনর্চাজ এস আই ফরহাদ কালাম সূজন ও সত্যজিৎ ভৌমিকের সার্বিক পরিচালনায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, এলাকার বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

সমাবেশে বক্তারা বর্তমান সময়ে পুলিশী কার্যক্রম ও ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, মাদক বন্ধ হলেই দেশে নারীর প্রতি ধর্ষন ও নির্যাতন বন্ধ হবে। পরে গুইমারা থানার ওসি মিজানুর রহমান নারী নির্যাতন, নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা বন্ধে পুলিশকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ। জনগণের সেবায় পুলিশ বন্ধপরিকর। বিট পুলিশিং কার্যক্রমের মাধ্যমে নারী নির্যাতন, নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা বন্ধসহ সকল ধরণের অপরাধ প্রবণতা বন্ধ করা সম্ভব যদি পুলিশকে বন্ধু ভেবে সকলে সহযোগিতা করে।

মানিকছড়ি উপজেলা: মানিকছড়ি থানা পুলিশের উদ্যোগে শনিবার (১৭ই অক্টোবর) মানিকছড়ি উপজেলার চার ইউনিয়নে একযোগে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে জনপ্রতিনিধি, শিক্ষার্থী ও সুধীজনরা অংশ নিয়েছেন। শনিবার (১৭ই অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় ১নং মানিকছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ মাঠ থেকে কর্মসূচী উদ্বোধন করা হয়।

এ সময় অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান মো: শফিকুর রহমান ফারুক, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মো: মাঈন উদ্দীন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো: রফিকুল ইসলামসহ জনপ্রতিনিধি, স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থী ও সাধারণ লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

পরে যোগ্যাছোলা, তিনটহরী ও বাটনাতলী ইউপিতে একই লক্ষ্য-উদ্দেশ্য নিয়ে বিঠ পুলিশিং সমাবেশ করেন থানা পুলিশ। সেখানে পুলিশ ইনচার্জ আমির হোসেন, তদন্ত মো: আমজাদ হোসেনসহ ইউপি চেয়ারম্যান ক্যয়জরী মহাজন, মো: আবুল কালাম আজাদ, মো: শহীদুল ইসলাম মোহনসহ সকল ইউপি সদস্য ও সুধীজনরা উপস্থিত ছিলেন। পুলিশের এমন মহতি উদ্যোগ দেখে স্বস্থি প্রকাশ করেছেন সাধারণ জনগণ ও জনপ্রতিনিধি’রা।

পানছড়ি উপজেলা: সারা দেশের ন্যায় পানছড়ি উপজেলার ৫টি বিটে একসাথে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। পানছড়ির থানা অফিসার ইনচার্জ মো: দুলাল হোসেনের তত্ববধানে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

শনিবার (১৭ই অক্টোবর) সকাল দশটা থেকে ১নং বিট পানছড়ি ইউপিতে এএসআই মাহবুব ও এএসআই সরোয়ার, ২নং বিট চেংগী ইউপিতে এসআই ইকবাল হোসেন ও এএসআই নুরে আলম, ৩নং বিট লোগাং এসআই অনিক কুমার দে ও এএসআই তৌহিদুল,

৪নং বিট লতিবানে ওসি (তদন্ত) মো: কামরুজ্জামান ও এএসআই এরশাদ ও ৫নং বিট উল্টাছড়িতে ওসি মো: দুলাল হোসেন ও এসআই নিভু রঞ্জন দত্ত উপস্থিত থেকে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানান। সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে এসব সমাবেশে বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষ অংশ নেয়। বিডিটুডেস/এএনবি/ ১৮ অক্টোবর, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

15 − fourteen =