English Version

গাইবান্ধায় শীতার্ত মানুষ ছুটছে গরম কাপড়ের দোকানে

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

আ: খালেক মন্ডল, গাইবান্ধা: গাইবান্ধায় মৃদু শৈত্য প্রবাহের ফলে কণকণে শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ায় গরম কাপড়ের চাহিদা বেড়েছে। বেচাকেনা জমে উঠেছে ফুটপাতের দোকানগুলোতে। নতুন কাপড়ের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় পুরনো কাপড়ের দোকানের দিকে ক্রেতারা ঝুঁকে পড়ছে। শীত নিবারণে প্রয়োজন গরম কাপড়।

শীতের কারণে অনেকটাই সমস্যায় পড়তে হচ্ছে উত্তরের জেলা গাইবান্ধার শ্রমজীবী-কর্মজীবীদের। এ শীত থেকে বাঁচতে তাই তারা ছুটছেন গরম কাপড়ের খোঁজে। শীতের তীব্রতা বাড়ায় জেলা শহরের স্টেশন রোড, পি.কে বিশ্বাস রোড, স্বাধীনতা প্রাঙ্গণ এলাকায় যেন ঈদের আমেজ।

ফুটপাতের দোকানগুলোতে হাজার হাজার ক্রেতার ভিড় দেখা গেছে। তাদের কেউ দরদামে ব্যস্ত, কেউ আবার পছন্দের পোশাক কেনায় ব্যস্ত। তারা সবাই এসেছেন গরম কাপড় কিনতে। প্রতিটি দোকানে নারী ও শিশুসহ নানা বয়সী ক্রেতার উপস্থিতি চোখে পড়ে। নিম্ন ও মধ্য আয় থেকে শুরু করে সব শ্রেণির মানুষ এসেছেন গরম কাপড়ের খোঁজে।

এসব দোকানে সবচেয়ে বেশি চাহিদা ট্রাউজার, ফুলহাতা গেঞ্জি, দেশি-বিদেশি জ্যাকেট, ব্লেজার, বাচ্চাদের পোশাকের। বিক্রি বেড়েছে কাপড়ের তৈরি জুতা, মোজা, টুপিসহ বিভিন্ন চাদরের। এসব পোশাকের দামও রয়েছে ক্রেতার সাধ্যের মধ্যে। তাই ক্রেতারা দর-দামের পরিবর্তে পছন্দের পণ্যটি কেনায় প্রাধান্য দিচ্ছেন।

কনকনে শীতের কবল থেকে বাঁচতে অপেক্ষাকৃত গরিব ও নিম্ন আয়ের মানুষ ভিড় করছেন শহরের পুরাতন কাপড়ের দোকানগুলোতে। এদিকে গরম পোশাক বিক্রি করতে হিমশিম খাচ্ছেন দোকান মালিক থেকে শুরু করে কর্মচারীরা। শীতের সুযোগে বিক্রেতারা বেশি দামে কাপড় বিক্রি করছেন। ক্রেতারাও বেশি দামে কাপড় কিনতে বাধ্য হচ্ছেন। বিডিটুডেস/এএনবি/ ২০ জানুয়ারি, ২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

fifteen + 20 =