English Version

গোবিন্দগঞ্জে ১২০ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার মাঝে দলিল হস্তান্তর

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

আ: খালেক মন্ডল, গাইবান্ধা: মুজিববর্ষে শেখ হাসিনার উপহার গোবিন্দগঞ্জে ঘর পেল ১২০ জন গৃহহীন পরিবার ভূমিহীন-গৃহহীনদের একটি সুন্দর ঘরের স্বপ্ন পূরণের প্রথম ধাপে দেশের প্রায় ৭০ হাজার পরিবার পেলো একটি আধাপাকা বাড়ি।

এক সঙ্গে এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে বিনামূল্যে ঘর করে দেওয়ার মধ্য দিয়ে বিশ্বে অনন্য নজির সৃষ্টির করলো বাংলাদেশ। মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে ১২০টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে এসব ঘর ও জমি দেওয়া হয়।

উল্লেখ যে কিছুদিন আগে থেকে এসব ভৃমিহীন ব্যক্তিদের মধ্য অনেকের বাড়িঘর, জায়গা জমি রয়েছে। তাই ঘর বরাদ্দ দেয়ার আগে এ তালিকাটি সঠিকভাবে সরেজমিনে তদন্তপূর্বক যাচাই-বাছাই করার জন্য জনগণের পক্ষ থেকে দাবী ছিল।

এ দাবী উপেক্ষা করেই শনিবার (২৩ জানুয়ারি) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘর বিতরণের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর পরই গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ১২০টি ঘরের চাবি, জমির কবুলিয়ত-দলিল, নামজারী খতিয়ান সুবিধাভোগীদের হাতে তুলে দেন।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা পরিষদ হলরুমে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্স ও ঘরের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মণ, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজির হোসেন, উপজেলা কৃষি অফিসার খালেদুর রহমান,

থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মেহেদী হাসান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি প্রধান আতাউর রহমান বাবলু, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শফিউল আলম জুয়েল, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম সহ বিভিন্ন দপ্তরের অপরাপর কর্মকর্তা, সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ।

ভূমিহীন-গৃহহীনদের একটি সুন্দর ঘরের স্বপ্ন পূরণের প্রথম ধাপে দেশের প্রায় ৭০ হাজার পরিবার পেলো একটি আধাপাকা বাড়ি। এক সঙ্গে এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে বিনামূল্যে ঘর করে দেওয়ার মধ্য দিয়ে বিশ্বে অনন্য নজির সৃষ্টির করলো বাংলাদেশ। মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে ১২০টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে এসব ঘর ও জমি দেওয়া হয়। বিডিটুডেস/এএনবি/ ২৩ জানুয়ারি, ২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

2 × 1 =