English Version

জুভেন্টাসের হার শিরোপা নাপোলির

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

বিডিটুডেস ডেস্ক: পাওলো দিবালা ও দানিলোর ভুলে টাইব্রেকারে শট নেয়া হয়নি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর। আর চার শটেই ম্যাচ হেরে গেল জুভেন্টাস। ৩১তম কোপা ইতালিয়ান শিরোপা নিজের করে নিল নাপোলি। ছয় বছর পর কোপা ইতালিয়া দিয়ে শিরোপা খরা কাটল নাপোলির। সবশেষ ২০১৩-১৪ মৌসুমে কোপা ইতালিয়া জিতেছিল দলটি।

বুধবার রাতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফাইনাল ম্যাচে গোলশূন্য ড্রর পর টাইব্রেকারে ৪-২ গোলে সিআরসেভেনের দল জুভেন্টাসকে হারাল নাপোলি। শুধু শিরোপাই হাতছাড়া হয়নি, পুরো ম্যাচজুড়ে সমর্থকদের হতাশায় ডুবিয়েছেন রোনাল্ডোরা। পুরো ম্যাচে দলের সেরা তারকা রোনাল্ডো গোলপোস্ট বরাবর শট নিতে পেরেছেন মাত্র ৩টি। যার দুটিই কসরত করতে হয়নি নাপোলি গোলরক্ষকের।

ম্যাচের ২৬ মিনিটের মাথায় লরেন্সো ইনসিগনের ফ্রি কিক জুভেন্টাসের গোলবারে লেগে রক্ষা হয়। বিরতির ঠিক আগে ফের ইনসিগনের আক্রমণ ঠেকিয়ে দেন জুভেন্টাস গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফন। দ্বিতীয়ার্ধের অতিরিক্ত যোগ সময়েও নাপোলির শানিত আক্রমণ থেকে দলের রক্ষাকর্তা হন বুফন। এভাবেই খেলার শেষ অবধি জুভেন্টাসে রক্ষণভাগকে ভেঙে নাপোলির সব আক্রমণ রুখে দেন ৪২ বছর বয়সী বুফন।

ম্যাচের ৯৩ মিনিটে খুব কাছ থেকে হেড করেন সার্বিয়ান ডিফেন্ডার নিকোলা মাকসিমোভিচ। বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকান বুফন, ফিরতি বলে আবার শট হয়। সেটিও ঠেকিয়ে কোনোমতে জাল অক্ষত রাখেন বুফন। ফলে ম্যাচভাগ্য গড়ায় টাইব্রেকারে। এবার নায়ক হিসেবে আবির্ভূত হন নাপোলি গোলরক্ষক মেরেট। জুভেন্টাসের প্রথম শট নেন পাওলো দিবালা, তা অনায়াসে ঠেকিয়ে দেন মেরেট। দ্বিতীয় শট নিতে এসে দানিলো তা বারের অনেক ওপর দিয়ে মারেন।

অন্যদিকে নাপোলির ফুটবলারদের টানা চার শটের একটিও থামাতে পারেননি বুফন। টাইব্রেকারের পঞ্চম শটটি নেয়ার অপেক্ষায় ছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। হয়তো শেষ শটটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভেবেই দল থেকে নেয়া হয়েছিল এ সিদ্ধান্ত। কিন্তু চার শটেই ম্যাচ হেরে যায় জুভেন্টাস। রোনাল্ডোকে আর পরীক্ষায় নামতে হয়নি। চার শটেই ম্যাচ হেরে যায় জুভেন্টাস। সূত্র: যুগান্তর, বিডিটুডেস/এএনবি/ ১৮ জুন, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

14 + 16 =