English Version

দিনাজপুরে পরিবেশ বান্ধব ভার্মি কম্পোস্ট সার

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

শাহ্ আলম শাহী, দিনাজপুর: দিনাজপুরে পরিবেশ বান্ধব জৈব পদ্ধতিতে ভার্মি কম্পোস্ট কেচোঁ সার উৎপাদন বাড়ছে। অধিকাংশ কৃষকের বাড়িতে এখন উৎপাদন হচ্ছে এ সার। এতে রাসায়নিক সার ব্যবহারের প্রবণতা যেমন কমছে, তেমনি কমছে ফসল উৎপাদন উৎপাদন খরচ। এ সার ব্যবহারে কৃষকের ফসল উৎপাদন বাড়ছে।

দিনাজপুরে জমিতে রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমানো এবং পরিবেশ বান্ধব কেঁেচা বা ভার্মি কম্পোস্ট সার ব্যবহার জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কেঁচো কম্পোস্ট সার ফসল উৎপাদনে সহায়ক ভূমিকা রাখছে। এ সারে রয়েছে পানি, নাইট্রোজেন, পটাশ, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস, সালফার ও বোরন।

এ সার মাটির পুষ্টিগুণ বৃদ্ধি করে। বেলে মাটির পানি ধারন ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। মাটিতে বৃদ্ধি করে উপকারী অনুজীবের কার্যক্রম। এলাকার অনেক কৃষক এই সার নিয়মিত ব্যবহার করছেন। কম খরচে বাড়িতে তৈরি এই সার জমিতে ব্যবহার করে বেশ সাড়া ফেলেছেন অনেক কৃষক।

কাহারোল উপজেলার বকদুর হাট এলাকার কৃষক খগেন্দ্র নাথ রায় জানান, এই পরিবেশ বান্ধব ভার্মি কম্পোস্ট কেচোঁ সার ব্যবহার করে তিনি অনেক লাভবান। এ সার ব্যবহারে একদিকে রাসায়নিক সার ব্যবহার যেমন কমেছে, তেমনি আর্থিক সাশ্রয় হচ্ছে এসার ব্যবহারে। সেই সাথে বাড়ছে ফসল উৎপাদন।

সরেজমিনে দেখা গেছে,গরু পালনের পাশাপশি অনেকে স্যানেটারি রিং বা পাকা হাউস অথবা পাকা চাড়ি, আবার কেউ হাউজে তৈরি করছেন, ভার্মি কম্পোস্ট সার। এ স্যার ব্যবহারে মাটির রাসায়নিক ও জৈবিক গুণাগুণ বৃদ্ধি’র মাধ্যমে উৎপাদিত ফসলের গুণগতমান ভালো হচ্ছে।

থাইল্যান্ড বা অস্ট্রেলিয়ান কেচোঁ বা এশিনা ফটিনা জাতের লাল কেচোঁর মাধ্যমে গরু-মহিষের গোবর, সব্জির উচ্ছিস্টাংশ, খড়, আবর্জনা, লতা-পাতা, কাগজ-কচুরিপানা এমনটি কলাগাছ থেকেও ভার্মি কম্পোস্ট জৈব সার উৎপাদন হচ্ছে বলে জানান।

বিরল উপজেলার আদর্শ কৃষক মতিউর রহমান এবং একই উপজলার ফুলবাড়ি এলাকার কৃষক সুশান্ত কুমার। দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. তৌহিদুল ইকবাল জানিয়েছেন, ভার্মি কম্পোস্ট জৈব সারে গাছের প্রয়োজনীয় ১৬টি উপদান থাকায় তা ফসলের উৎপাদন বাড়িয়ে দিচ্ছে।

এ সার উৎপাদনে কৃষককে সহায়তা ও পরামর্শ দিচ্ছে,কৃষি বিভাগ।আকার ভেদে এক একটি হাউজ থেকে প্রতিমাসে ৪ থেকে সাড়ে ৪মন পর্যন্ত ভার্মি কম্পোস্ট জৈব সার পাচ্ছেন, কৃষক। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন খুবই কম খরচে পরিবেশ বান্ধব ও কৃষি সহায়ক এ ভার্মি কম্পোস্ট জৈব সার কৃষকের ভাগ্য ঘুরিয়েছে।

দিনাপুরের ১৩টি উপজেলার কয়েকটি সরজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, বেশ কিছু এলাকার বাড়িতে বাড়িতে ভার্মি কম্পোস্ট সার তৈরির ধুম পড়েছে। ভার্মি কম্পোস্ট সার জমিতে ব্যবহারের মাধ্যমে একদিকে যেমন কৃষকের আর্থিক সাশ্রয় হচ্ছে, তেমনি বাড়ছে ফসল উৎপাদন। বিডিটুডেস/এএনবি/ ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

20 + one =