English Version

বন বাঁচাতে ৭০০ কি.মি. পায়ে হেঁটে পাড়ি….

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

বিডিটুডেস ডেস্ক: নিজের দ্বীপপুঞ্জের দ্রুত হারিয়ে যাওয়া বনজঙ্গল বাঁচানো উদ্দেশ্যে পিছনে হাঁটছেন মেডি ব্যাস্টোনি। চার সন্তানের বাবা, ৪৩ বছরের মেডি ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব জাভার ঘুমন্ত আগ্নেয়গিরি উইলিস পর্বতাঞ্চলের বাসিন্দা। উইলিস থেকে প্রায় ৭০০ কিলোমিটার পিছনে হেঁটে আগামী ১৬ তারিখ জাকার্তা পৌঁছতে চাইছেন মেডি। ওই দিনই ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতা দিবস। মেডির আশা, সেদিন জাকার্তায় ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইডোডোর সঙ্গে দেখা করে দ্বীপপুঞ্জে ক্রমাগত বনভূমি হ্রাসের বিরুদ্ধে পদক্ষেপের আবেদন করবেন।

ইন্দোনেশিয়ায় পিছু হাঁটার অর্থ, অতীতের স্মৃতিচারণ এবং জাতীয় নায়কদের কীর্তি স্মরণ করা। সেজন্যই এককালের ঘন বিষুবীয় বনাঞ্চলের স্মৃতিচারণায় পিছনদিকে হাঁটার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মেডি। প্রতিদিন ভোরে উঠে প্রায় ৩০ কিলোমিটার পথ পেরনোর চেষ্টা করেন তিনি। পিঠের ব্যাগে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ছাড়া একটি রিয়ার ভিউ আয়না রাখেন মেডি যাতে, যেহেতু তাঁর মুখ সামনের দিকে হলেও তিনি পিছনে হাঁটছেন, সেহেতু রাস্তার এবরোখেবরো দিকগুলি লক্ষ্য রাখতে পারেন।

হেলথ টিপস পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

তাঁর যাত্রাপথে মেডিকে স্থানীয় বাসিন্দারা উৎসাহ জোগাচ্ছেন। তাঁকে খাবার এবং রাতে থাকার ব্যবস্থাও করে দিচ্ছেন অপরিচিতরা। শুধু উইলিস পর্বতই নয়, উন্নয়নের স্রোতের ধাক্কায় প্রায় সারা ইন্দোনেশিয়া দ্বীপপুঞ্জ জুড়েই চলছে বিশাল হারে বৃক্ষ নিধনযজ্ঞ। এককালের ঘন বনভূমি আজ প্রায় ইতিহাস। তাই গাছ বাঁচানোর আবেদনেই মেডির পিছু হাঁটা। বিডিটুডেস/আরএ/০৬ আগস্ট, ২০১৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

13 − 7 =