English Version

বশেমুরবিপ্রবিতে এবার শিক্ষকদের ৩ দিনের কর্মবিরতি

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

ফয়সাল হাবিব সানি, গোপালগঞ্জ: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষকদের বিভিন্ন সময় লাঞ্চনা, হুমকি প্রদান ও নিগ্রহের অভিযোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষকমণ্ডলী। সোমবার (২০ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সামনে ‘শিক্ষকবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ’ ব্যানারে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা৷

এসময় উপস্থিত শিক্ষকবৃন্দ কর্মবিরতিরও ঘোষণা দেন৷ উক্ত মানববন্ধন কর্মসূচিতে লিখিত বক্তব্য পেশ করেন বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি) চেয়ারম্যান পরিষদের সভাপতি সালেহ আহমেদ৷ এ লিখিত বক্তব্যে পেশকৃত অভিযোগে গুটিকয়েক সার্থান্বেষী মহল দ্বারা কিছুদিন ধরে বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষকদেরকে হয়রানিমূলকভাবে লাঞ্চনা, নিগ্রহ ও হুমকি প্রদানের বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়।

তিনি (সালেহ আহমেদ) বলেন, ‘বেশ কয়েক মাস ধরেই (বিশেষত, সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন অপসারণ আন্দোলনের পরবর্তী সময়ে) শিক্ষক হয়রানি ও নিগ্রহের কোনো আশু সমাধান না হওয়ায় এ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সময়ে নানানভাবে শিক্ষক লাঞ্চনা ও নিগ্রহের ঘটনা ঘটেই চলেছে।

উল্লেখ করা যায় যে, অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি খসরুল আলনকে হত্যার হুমকি, গণিত বিভাগের শিক্ষক ড. দীপঙ্কর কুমারকে অন্যায়ভাবে লাঞ্চিত করা, বিজিই বিভাগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল জোবায়েরের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও অযৌক্তিক অভিযোগ এনে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশকে বিনষ্ট করা, বিজয় দিবস হলের প্রভোস্ট শফিকুল ইসলামকে মানহানি, তার নামে মিথ্যাচার করা ও তাকে হেনস্থা করে হুমকি প্রদান’,

স্বাস্থ্যের খবর জানুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের একজন শিক্ষিকাকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করা, শেষমেশ কিছুদিন পূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা কাজী মসিউর রহমানকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অশালীন গালি-গালাজ ও অসত্য প্রচার করে সামাজিকভাবে তাকে হেয় প্রতিপন্ন করা হয়েছে এবং সম্প্রতি বিলওয়াবসের দুইজন শিক্ষিকার সঙ্গেও অনাকাঙ্খিত ব্যবহারের মতো ঘটনা ঘটেছে।’

প্রসঙ্গত, এমতাবস্থায় অনাকাঙ্খিত ও বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক ভাবমূর্তি নষ্ট মতো এসকল ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন এবং তাদের সম্মানহানি ঘটছে দাবি করে সোমবার (২০ জানুয়ারি) থেকে বুধবার (২২ জানুয়ারি) অবধি সকল ধরণের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে ৩ দিনের কর্মবিরতি ঘোষণা করেন তারা। এছাড়াও, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট শিক্ষক লাঞ্চনা, হুমকি প্রদান ও নিগ্রহের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের উদাত্ত আহ্বান জানান তারা। বিডিটুডেস/এএনবি/ ২১ জানুয়ারি, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

16 − eleven =