English Version

বাগেরহাটে কোরবানির পশুর হাটে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড়

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট: বাগেরহাটের কোরবানির পশুর হাটগুলোতে ক্রেতা উপচে পড়া ভীড় শুরু হয়েছে। সব হাট গুলোতে স্থানীয় পশুর পাশাপাশী বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা পশু ও বিক্রেতার সমাগম। ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে পশুর হাট তত জমে উঠছে। সব ক্রেতারাই একটু আগে-ভাগেই নিজের পছন্দমত পশু সাশ্রয়ের মধ্যে ক্রয় করতে চান তারা। বিভিন্ন হাট ঘুরে ক্রয়-বিক্রয় নিয়ে ক্রেতা বিক্রেতাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানাগেছে। কেউ বলছে বেচা-বিক্রি ভাল, কোন কোন বিক্রেতা বলছে হাটে যথেষ্ট লোক থাকলে ও গরুর দাম বলছে না।

শনিবার সকাল থেকেই জেলার ফকিরহাট উপজেলার বেতাগা গরুর হাটে বিভিন্ন এলাকার প্রায় তিন হাজার গরু নিয়ে আসেন বিক্রেতারা। ক্রেতাও ছিল চোখে পড়ার মত। অনেকেই পছন্দের গরু ক্রয় করে বাড়ি ফিরছেন। কেউ কেউ ঘুরে ফিরে গরু দেখছেন। কাংক্ষিত দামে নিজের পশু বিক্রয়ের প্রত্যায় বিক্রেতারা অপেক্ষা করছেন । পছন্দের পশু ক্রয় করে বাড়ী ফেরার পথে বিশিষ্ট ঠিকাদার আব্দুর রব এর সাথে কথা হলে দাম এবং পছন্দ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, হাটে পশুর সমাগম যথেষ্ট আছে, আমার পছন্দের এবং নাগালের মধ্যে ক্রয় করতে পেরেছি এতেই আমি খুশি। একই রকম মন্তব্য করেছে আরও কয়েক জন ।

হেলথ টিপস পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

স্থানীয় এক গরু বিক্রেতা লাবলু মল্লিক এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, নিজের পালিত তিনটি গরু নিয়ে সকালে হাটে আসছি । একটি গরু ৭৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেছি। আশা করছি বিকেলের মধ্যে বাকি দুটো বিক্রি হয়ে যাবে ইনশা আল্লাহ। অনেক মৌসুমী ব্যবসায়ী আছে যারা কোরবানিকে পুজি করে গ্রাম থেকে গরু ক্রয় করে নিয়ে এসে বিভিন্ন হাটে বিক্রি করেন। এমন এক ব্যবসায়ী আব্দুস ছালাম বলেন, যে দামে গরু ক্রয় করেছি। সে অনুযায়ী লাভ করতে পারছি না। ক্যাশ উঠাতেই বাধ্য হয়ে গরু বিক্রি করতে হচ্ছে। তবে শেষ মুহুর্তে গরুর দাম কিছুটা কমতে পারে সে আশংকা ও প্রকাশ করেন তিনি।

হাট সম্পর্কে বেতাগা হাটের ইজারাদার আনন্দ দাস বলেন, সপ্তাহে শুক্রবার ও সোমবার দুই দিন করে সারা বছর আমাদের হাটে পশু ক্রয়-বিক্রয় হয়। কোরবানি উপলক্ষে গেল সোমবারের হাটে প্রায় দুই হাজার গরু বিক্রি হয়েছে। শুক্রবারে ও হাটে দুই হাজারের বেমী গরু বিক্রি হয়েছে। আজ ও হাটে ৩ হাজারের বেশী গরু এসেছে , আশা করি সকল গরু বিক্রি হয়ে যাবে। এই পরিমান গরু বিক্রয় হবার কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন ক্রেতা বিক্রেতাদের একটু বেশি সুযোগ সুবিধা ও পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দিয়ে থাকে হাট কতৃপক্ষ আর এ কারণে এই হাটের সুনাম ও বিশেষ পরিচিতি আছে। যার ফলে অনেক দূর-দূরান্ত থেকে বিক্রেতারা এখানে গরু বিক্রি করতে আসে। বিডিটুডেস/আরএ/১০ আগস্ট, ২০১৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

17 − 15 =