English Version

মাস্ক না পড়ায় রাঙ্গামাটিতে ১৭ জনকে অর্থদণ্ড

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

সুপ্রিয় চাকমা শুভ, রাঙ্গামাটি: করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আরো কঠোরভাবে মাঠে নেমেছে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসন। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে রাঙ্গামাটি শহরে দফায় দফায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করছে জেলা প্রশাসন।

পাশাপাশি স্বাস্থ্য অধিদফতরের মাস্ক পরিধান করা বাধ্যতামূলক ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা জারির পর থেকেই প্রথমদিনে মাস্ক ব্যবহার না করায় ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে রাঙ্গামাটি শহরে অযথায় ঘুরে বেড়ানোর দায়ে ১৭ জনকে অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট একেএম মামুনুর রশিদ জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আরিফুর রহমানসহ চারজন ম্যাজিষ্টেটকে সাথে নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনার সময় তিন হাজার চারশত টাকা করে প্রতি ১৭ জনকে অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেন।

সকালে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসকরে বাসভবণ থেকে শুরু করে রিজার্ভ বাজার, ট্রাক টার্মিনাল, কাঠালতলী, বনরূপা ও জেলা প্রশাসকরে কার্যালয় পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট একেএম মামুনুর রশিদ নিজেই বিভিন্ন স্থানে ঘুরে ঘুরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

এ বিষয়ে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট একেএম মামুনুর রশিদ জানান, যারা সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মুখে মাস্ক ব্যবহার না করে যেখানে-সেখানে ঘুরে বেড়ায় তাদেরকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসার জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। করোনার এসময়ে পরিস্থিতিতে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পরবর্তীতে আরো এই ধরনের অভিযান পরিচালনা করে হবে। তবে শুধু প্রশাসনরে উপর নির্ভর করে থাকলে হবে না। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সর্বপ্রথম জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে।

এদিকে রাঙ্গামাটিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ৬৮ জনের মধ্যে নতুন করে ১৩ জন সম্পূর্ণভাবে সুস্থ হয়েছে বলে জানিয়েছে রাঙ্গামাটি সিভিল সার্জন অফিস। এতে করে রাঙ্গামাটি জেলাতে আক্রান্ত হওয়া ৬৮ জনের মধ্যে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে সর্বমোট পুরোপুরিভাবে সুস্থ হয়েছেন ২৩ জন।

বর্তমানে রাঙ্গামাটিতে ৩০৯ জন কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। ২০৩ জনকে কোয়ারেন্টিনমুক্ত করা হয়েছে এবং ১১ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাঙ্গামটি সিভিল সার্জন কার্যালয়ের করোনা বিভাগের ফোকাল পার্সন ডা. মোস্তফা কামাল। বিডিটুডেস/এএনবি/ ০৩ জুন, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

eighteen − four =