English Version

মেয়ে জামাইয়ের লালসার শিকার শাশুড়ি..!

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

জি এম মিঠন, নওগাঁ: নওগাঁয় মেয়ের জামাই কর্তৃক শাশুড়িকে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এতে ওই ধর্ষক জামাই পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় শাশুড়ি নিজে বাদি হয়ে জামাইয়ের বিরুদ্ধে থানায় একটি ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছেন।

থানা সূত্রে জানা গেছে, নওগাঁর ধামুরহাট উপজেলা সদর ইউনিয়নের অন্তর্গত রুপনারায়ণপুর এলাকার মৃত আব্বাস আলীর স্ত্রী হাসিনা বেওয়া (৭০) ও তার মেয়ে রেজিনা খাতুন (৪২) এবং মেয়ে জামাই ফেরদৌস হোসেন (৫০) ওই এলাকায় প্রায় ২০ বছর ধরে সরকারি খাস জমির উপরে বাড়ি নির্মাণ করে একত্রে বসবাস করে আসছিলেন।

প্রায় ১৫ বছর আগে হাসিনা বেওয়ার স্বামী মারা যাওয়ায় জীবিকার তাগিদে সে বিভিন্ন চর এলাকা থেকে কুশ কেটে তা রোদে শুকিয়ে ঝাড়ু তৈরী করে বিক্রি করতেন। এবং শাশুড়ির সাথে জামাই ফেরদৌস হোসেন মিলে কুশ কেটে ঝাড়ু বানানোর প্রস্তাব দিলে হাসিনা বেওয়া রাজি হন। এবং কয়েকদিন জামাই শাশুড়ি মিলে একসাথে চবশব্দল মৌজার খাড়ির পাড় থেকে কুশ কেটে আনেন।

তারই ধারাবাহিকতায় গত বুধবার (২৯ জুলাই) দুপুরের খাবার সঙ্গে নিয়ে তারা ওই বিল এলাকায় যায়। পরে বিকাল ৫ টার সময়ে বাসায় আসার প্রক্কালে ফাঁকা মাঠে হাসিনা বেওয়াকে একা পেয়ে আসামি ফেরদৌস হোসেন ধর্ষণ করেন। পরে স্থানীয় লোকজনদের সহায়তায় শাশুড়ি জামাইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ধামইরহাট থানার ওসি আবদুল মমিন জানান, এমন নেক্কারজনক ঘটনায় একটি ধর্ষণের মামলা হয়েছে। মামলা নং-০৫, তারিখ (০৪ আগস্ট)। ধর্ষিতার মেডিকেল রিপোর্টের জন্য নওগাঁ পাঠানো হয়েছে। আসামিকে দ্রুত গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ ভূমিকা পালন করছে। বিডিটুডেস/এএনবি/ ০৬ আগস্ট, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

4 × 1 =