English Version

রাঙ্গামাটিতে লিচু চাষে বাম্পার ফলন, করোনায় দাম পাচ্ছে না চাষীরা

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

সুপ্রিয় চাকমা শুভ, রাঙ্গামাটি: রাঙ্গামাটি জেলাতে এ বছরে লিচু চাষে বাম্পার ফলন হয়েছে। এ বছরে লিচু চাষে বাম্পার ফলন হলেও করোনা ভাইরাসের কারণে ন্যায্য মূল্যদাম পাচ্ছে না চাষীরা। প্রতিবছর রাঙ্গামাটির সবুজ পাহাড়ে উৎপাদিত হওয়া লাল রঙের রসালো সুস্বাদু লিচু রাঙ্গামাটিতে চাহিদা মিটানোর পরেও চট্টগ্রাম, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় রপ্তানি হচ্ছে।

রাঙ্গামাটি উপজেলা কৃষি অধিদফতরের উপজেলা কৃষিবিদ আপ্রু মারমা জানায়, রাঙ্গামাটিতে এ বছর ২০৫ হেক্টর জমিতে লিচু করা হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৫১২ মেট্রিকটন। এবছরে এখনো শিলাবৃষ্টিট না হওয়াতে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এবছরে লিচু প্রচুর পরিমাণে উৎপাদিত হয়েছে। করোনার কারণেও কিছুটা লিচুর ন্যায্য মূল্য দাম পাচ্ছে চাষীরা। দেশী লিচু শতকরা ৮০ থেকে ৯০ টাকা বিক্রি করতেছে।

কৃষি অধিদফতরের সূত্র জানায়, রাঙ্গামাটির বানিজ্যিক কেন্দ্র বনরূপা সমতাঘাট বাজারে এবছরে প্রচুর দেশি লিচু বিক্রি হচ্ছে। ইঞ্জিনচালিত নৌকা দিয়ে হাজার হাজার লিচু বিক্রি হচ্ছে। সূত্র আরো জানায়, রাঙ্গামাটি জেলায় এবছরে নানিয়ারচর, বাঘাইছড়ি, বিলাইছড়ি, জুরাছড়ি, বরকল, কাপ্তাইসহ উদর উপজেলার বন্দুক ভাঙ্গা ইউনিয়নে লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে।

সদর উপজেলার বন্দুক ভাঙ্গা ইউনিয়নের শান্তিলাল চাকমা ও ভারত চাকমা জানান, গতবছর তুলনায় এবছর লিচুর বাম্পার ফলন হলেও করোনা ভাইরাসের কারণে লিচু ন্যায্য মূল্যদাম পাচ্ছে না। গতবছরে শতকরা লিচু ১০০ টাকা বিক্রি হতো সেখানে এবছরে করোনার কারণে শতকরা ৬০-৭০ টাকা বিক্রি করতে হয়েছে। এবছরে লিচু চাষে তেমন লাভবান হয়নি বলে জানান লিচু চাষীরা।

নানিয়ারচরের আরেক লিচু চাষী উচিমং মারমা জানান, অন্যান্য লিচু চাষীরা তাদের লিচুর ন্যায্য দাম না পেলেও আমাদের কৃষি অধিদফতরের সূত্রমতে চাষীরা যথেষ্ট দাম পাচ্ছে।তবে গতবছরের তুলনায় এবছরে লিচুর দাম তেমন দেখা যায়নি। শতকরা দেশি লিচু ৫৬ থেকে ৬০ টাকা বিক্রি করতে হয়েছে। করোনা ভাইরাসের কারণে লিচু ক্রেতা ব্যবসায়ী নেই। যার কারণে অল্পদামে লিচু বিক্রি করতে হয়েছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, মহামারি করোনা ভাইরাসে হতাশায় দিন কাটাচ্ছে চাষীরা। করোনা ভাইরাস রাঙ্গামাটিতে হানা দেওয়াতে বাগানে হাজার হাজার লিচু পচে যাচ্ছে। বাজার বন্ধ হয়ে যাওয়াতে হতাশায় দিনগুণতে হচ্ছে চাষীদের। বিডিটুডেস/এএনবি/ ২১ মে, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

5 × 4 =