English Version

রুহিয়ায় একদিকে সংসার অন্যদিকে কিস্তির টাকা, বিপাকে নিম্নবিত্তরা

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

গৌতম চন্দ্র বর্মন, ঠাকুরগাঁও: করোনাভাইরাস নিয়ে যখন বাংলাদেশসহ বিশ্বের মানুষজন আতঙ্কের মধ্য দিয়ে দিনপার করছে। ঠিক তখনেই ঠাকুরগাঁওয়ের জেলার রুহিয়ায় থানায় সরকারী ব্যাংক ও বে-সরকারী সংস্থা আশা, গ্রামীণ ব্যাংক, ইএসডিও, ব্রাক, টিএমএসএস এনজিওগুলো তাদের বিতরণ করা ঋণের কিস্তি তোলা বন্ধ করেনি। এতে বিপাকে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষেরা।

২২ মার্চ রোববার কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেছে অনলাইন বিডিটুডেজ এই প্রতিবেদক।ভ্যান শ্রমিক সৈতেন, ‘‘বর্তমানে সারাদিন ভ্যান চালিয়ে ভাড়া হয় এক থেকে দেড়শত টাকা মাত্র। যা দিয়ে জীবন চলা কষ্টকর হয়ে গেছে।আগামী বৃহস্পতিবার কিস্তি দিতে হবে প্রায় ১০০০ টাকা। লোকজন কমে যাওয়ায় ভাড়াও তেমন হচ্ছে না। সংসারের টাকায় হচ্ছে না কিস্তির টাকা দিব কিভাবে।’’

প্রায় একইরকম কথা জানিয়ে দিনমুজুর যাত্রু বলেন, ‘‘মানুষের বাড়িতে আপাতত কাজ হচ্ছে না। কোন আয় ইনকাম নেই। অথচ কিস্তি রবিবার রয়েছে পাচঁশত টাকা।’’ এদিকে ক্ষুদ্র ও ভ্রাম্যমাণ ব্যবসায়ীরাও রয়েছে বিপাকে তাদেরও বেচা কেনা নেই।

ভ্রাম্যমাণ ব্যবসায়ী মোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘‘আগে গ্রাম গ্রামে গিয়ে দিনে এক থেকে দেড় হাজার টাকা বিক্রি হত। বর্তমানে তা একেবারে নেই। আতঙ্কে মানুষ আমাদের তাদের পাড়া মহল্লায় যেতে দেয় না।’’ঋণ নিয়ে নিজেদের ভাগ্যবদল চেষ্টাকারী এই মানুষগুলোর বর্তমান পেক্ষাপটে কিস্তি তোলা বন্ধ করার আহবান জানান।

এ বিষয়ে গ্রামীণ ব্যাংকের ম্যানেজার ফরিদ হোসেন বলেন, ‘‘উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ আমাদের কিস্তি তোলা বন্ধ করার নির্দেশ দেয় নি। তাই বন্ধ করিনি। একইভাবে সকল এনজিও এখনো তাদের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ না আসায় কিস্তি তোলা বন্ধ করে নি।’’ বিডিটুডেস/এএনবি/ ২৩ মার্চ, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

20 + five =