English Version

সারাদেশে ২৮টি জোনে চাষির মাধ্যমে প্রত্যাশিত বীজআলু উৎপাদন করা হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী রাজ্জাক

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

মহিনুল ইসলাম সুজন, নীলফামারী: কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেছেন, বর্তমানে বছরে ১ কোটি টনের বেশি উন্নত জাতের আলু উৎপাদন হয়। দেশের চাহিদা রয়েছে ৬০ থেকে ৭০ লাখ টন। দেশে উৎপাদিত আলুতে পানির পরিমাণ বেশি হওয়ায় বিদেশে চাহিদা কম। সে জন্য বিদেশে চাহিদার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহারযোগ্য আলুর আবাদ ও উৎপাদন বৃদ্ধিতে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (২৭ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) বীজআলু উৎপাদন খামার পরিদর্শনকালে এ কথা বলেন। একই সময় মন্ত্রী খামারে রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহারযোগ্য আলুর প্লট, আলু ফসলের মিউজিয়াম, ড্রাগন ও খেজুর বাগান পরিদর্শন করেন।

এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, মানসম্মত বীজআলু উৎপাদন ও সংরক্ষণ এবং কৃষক পর্যায়ে বিতরণ জোরদার করণ প্রকল্পের আওতায় ডোমার খামারে ভিত্তি বীজআলু উৎপাদন করা হচ্ছে। পাশাপাশি নতুন জাতের উপযোগিতা যাচাইয়ের জন্য ট্রায়াল প্লট স্থাপন ও পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

এছাড়াও ওই প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ২৮টি জোনে চুক্তিভিত্তিক চাষির মাধ্যমে কৃষক পর্যায়ে প্রত্যাশিত বীজআলু উৎপাদন করা হচ্ছে। আলু উৎপাদনে নীলফামারী, ঠাকুরগাও, দিনাজপুরসহ উত্তরাঞ্চল খুবই উপযোগি উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এর প্রথম কারণ হলো এ এলাকার শীতের সময়টা অনেক বড়। শীত শুরু হয় আগে, শীত শেষ হয় পরে এবং শীতের তীব্রতাও বেশি। আলু উৎপাদনের জন্য এ আবহাওয়াটি প্রয়োজন।

কম খরচে আলুর বীজ উৎপাদনের জন্য এ এলাকাটি খুবই উপযোগি। আমরা বিদেশ থেকে বীজ এনে উৎপাদন করছি। আগে ২০ থেকে ২৫ হাজার মেট্রিকটন আলুবীজ হল্যান্ড থেকে আসতো। দেশে ভিত্তিবীজ উৎপাদন হওয়ায় আজকে আমাদেরকে আর বিদেশ থেকে বীজ আনতে হয় না।

এ সময় কৃষি সচিব মেসবাহুল ইসলাম, বিএডিসির চেয়ারম্যান সায়েদুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আসাদুল্লাহ, বারির মহাপরিচালক নাজিরুল ইসলাম, গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. এছরাইল হোসেন, নীলফামারী জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান (বিপিএম-পিপিএম) জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নীলফামারী পৌরসভা মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ,

ডোমার বিত্তিবীজ আলু উৎপাদন খামারের উপ-পরিচালক আবু তালেব মিয়া, এ সময় কৃষি সচিব মেসবাহুল ইসলাম, বিএডিসির চেয়ারম্যান সায়েদুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আসাদুল্লাহ, বারির মহাপরিচালক নাজিরুল ইসলাম, গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. এছরাইল হোসেন, নীলফামারী জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী,

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান (বিপিএম, পিপিএম) জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নীলফামারী পৌর মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ, ডোমার বিত্তিবীজ আলু উৎপাদন খামারের উপ-পরিচালক আবু তালেব মিয়া সহ জেলা ও ছয় উপজেলার বিভিন্ন কৃষি কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, আলু উৎপাদনে দেশে বীজআলুর বার্ষিক চাহিদা ৭ দশমিক ৫ লাখ মেট্রিকটন। বিএডিসি বিশেষায়িত দুইটি ভিত্তি বীজআলু উৎপাদন খামার রয়েছে। যার মধ্যে ডোমার গুরুত্বপূর্ণ। খামারটির জমির পরিমাণ ৫১৬ একর। চলীত বছর ২৫৬ একর জমিতে বীজআলু উৎপাদন হয়েছে। এখানে দুইটি টিস্যুকালচার ল্যাবরেটরি রয়েছে। বিডিটুডেস/এএনবি/ ২৮ জানুয়ারি, ২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

10 + 6 =