English Version

২০ ছাত্রের ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ছাত্রাবাস উদ্বোধন

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

সুপ্রিয় চাকমা শুভ, রাঙ্গামাটি: রাঙ্গামাটি সদর উপজেলার অন্যতম সুপ্রতিষ্ঠিত একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলো ‘বন্দুক ভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়’। এখানে প্রায় ২৫০ জন অধিক ছাত্র-ছাত্রী পড়াশোনা করে। সদর উপজেলার একটি উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হওয়া সত্ত্বেও বিদ্যালয়ে বিভিন্ন সমস্যা যেন বিদ্যালয়ে পাঠদানে ব্যাঘাত সৃষ্টি ঘটে।

একদিকে নেটের গতি দূর্বল অন্যদিকে নেই বিদ্যুৎ ব্যবস্থা। বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ও ইন্টারনেট সেবা না থাকাতে করোনাকালীন সময়ে অনলাইনে পাঠদান থেকে বঞ্চিত বন্দুক ভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা। অপরদিকে নেই পর্যাপ্ত পরিমাণে ছাত্র-ছাত্রীদের থাকার হোস্টেল। যার কারণে দূর-দূরান্ত থেকে আসা বেশির ভাগই ছাত্র-ছাত্রীরা হোস্টেলে থেকে পড়া-লেখা চালিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে সুযোগ পাই না।

বহু প্রতিক্ষার পরে অবশেষে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে নির্মিত হলো ২০ জন ছাত্রের একটি ছাত্রাবাস। বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) সকালে জেলা পরিষদের অর্থায়নে ৯০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নব নির্মিত ছাত্রাবাস উদ্বোধন করেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা। উদ্বোধনের আগেই প্রথমে দেব-মানবের মঙ্গল কামনায় ভগবান বুদ্ধের অমৃতময় ত্রিপিটক পাঠ করেন সহকারী শিক্ষক রিপান্ত চাকমা।

এসময় বন্দুক ভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অটন চাকমা উপস্থিত ছিলেন। আরো উপস্থিত ছিলেন, ম্যানেজিং কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহন চাকমা, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী বিরল বড়ুয়া, পরিষদের উপ-সহকারী প্রকৌশলী রিগ্যান চাকমা, নোয়াদম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সন্তোজীবন চাকমা, রঙচঙ্যা ক্লাবের সভাপতি কালাইয়া চাকমা ও শান্তিময় চাকমা’সহ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্যবৃন্দ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনকালে চেয়ারম্যান বৃষকেত চাকমা বলেন, মানুষের মত মানুষ হয়ে টিকে থাকার একমাত্র পথ হলো শিক্ষা। পরিষদের পক্ষ থেকে শিক্ষার উন্নয়নে অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা গেলেও শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার মনোযোগী হয়ে ভবিষ্যতের সুনাগরিক হিসাবে গড়ে উঠার দায়িত্ব শিক্ষক-অভিভাবকদেরকে নিতে হবে। অন্যথায়, বর্তমান যুগের চাহিদা পূরণে ব্যর্থ হলে এ এলাকার মানুষ সামনে এগুতে পারবে না। সেকারণে সকলের সম্মিলিত প্রয়াসে একটি শিক্ষিত সমাজ গড়ে তোলার জন্য তিনি এলাকাবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

বন্দুক ভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অটন চাকমা জানান,বিদ্যালয়ের অনেকগুলো সমস্যা রয়েছে। বিদ্যুৎ সমস্যা থেকে শুরু করে ইন্টারনেট সেবা থেকে বঞ্চিত বিধ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা। যার কারণে অনলাইনে ঠিকমত ক্লাস হচ্ছে না। ইন্টারনেটের গতি কম হওয়াতেই অনলাইনে ক্লাস সম্ভব নয়। সেহেতু সরকারি ও বেসরকারি মোবাইল সীমের কোম্পানী যদি নেটের গতি আরো বাড়িয়ে দেয় তাহলে শিক্ষা ক্ষেত্রে অনলাইনে ক্লাস করা অনেক সুবিধা হবে বলে তিনি জানান।

তিনি আরো জানান, নতুন ছাত্রাবাস পেয়েছি ঠিকই কিন্তু তা বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের পর্যাপ্ত পরিমাণে নয়। বিদ্যালয়ের শিক্ষার মান বাড়াতে সরকারের অবশ্যই বিদ্যালয়ের সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে সরকারকে পদক্ষেপ নিতে হবে।

উদ্বোধনের পরে নোয়াদম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও রঙচঙ্যা ক্লাব পরিদর্শণ করে বিদ্যালয়ের সিঁড়ি ও আসবাবপত্র সমস্যা সমাধানসহ বিভিন্ন বিষয় চিহ্নিত করে ভবিষ্যতে আরো কাজ করার জন্য আশাবাদ ব্যক্ত করেন চেয়ারম্যান বৃষকেত চাকমা। বিডিটুডেস/এএনবি/ ৩০ জুলাই, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

4 × five =